1. [email protected] : News room :
রাজশাহীতে বিএনপির মহাসমাবেশ রোববার, মেলেনি অনুমতি - লালসবুজের কণ্ঠ
শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৭:১৩ পূর্বাহ্ন

রাজশাহীতে বিএনপির মহাসমাবেশ রোববার, মেলেনি অনুমতি

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

রাজশাহী ব্যুরো:
রাজশাহীর ঐতিহাসিক মাদরাসা মাঠে বিএনপির পূর্বঘোষিত মহাসমাবেশ রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর)। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। এছাড়া বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যসহ দলের কেন্দ্রীয় নেতারা সমাবেশে উপস্থিত থাকবেন বলে রাজশাহী মহানগর ও জেলা বিএনপির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

তবে শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যা পর্যন্ত মাদরাসা মাঠে সমাবেশের জন্য কোনো অনুমতি পায়নি দলটি। তবে অনুমতি না পেলেও যেকোনো মূল্যে রোববার (২৯ সেপ্টেম্বর) দুপুর আড়াইটায় মাদরাসা মাঠে পূর্বঘোষিত বিভাগীয় মহাসমাবেশ সফল করার ঘোষণা দিয়েছে দলের রাজশাহীর শীর্ষ নেতারা।

সমাবেশের বিষয়ে জানাতে শনিবার (২৮ সেপ্টেম্বর) দুপুরে রাজশাহী নগরীর মালোপাড়ায় অবস্থিত মহানগর বিএনপি কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিএনপি। মহানগর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সিটি মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুলের সভাপতিত্বে সংবাদ সম্মেলনে বক্তৃতা করেন বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক রাসিক মেয়র মিজানুর রহমান মিুন, হাবিবুর রহমান হাবিব প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে মিজানুর রহমান মিনু বলেন, ‘প্রশাসন অনুমতি না দিলেও রোববার পূর্বঘোষিত সময়ে মাদরাসা মাঠে বিভাগীয় সমাবেশ করা হবে। কোন বাধাই বিএনপির বিভাগীয় মহাসমাবেশ পণ্ড করতে পারবে না।’

এই মহাসমাবেশ নিছক কোনো সমাবেশ নয় উল্লেখ করে মিনু বলেন, ‘এই মহাসমাবেশ থেকে বিএনপির আগামী দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। আমি দলীয় নেতাকর্মী ও সাধারণ জনগণকে সকল বাধা অতিক্রম করে মাদরাসা মাঠে সময়মতো উপস্থিত হওয়ার আহ্বান জানাচ্ছি।’

রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু বলেন, ‘বিভিন্ন জেলা থেকে বিএনপি নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষ যাতে রাজশাহীর মহাসমাবেশে যোগ দিতে না পারে, সেজন্য রোববার বাস বন্ধ রাখার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। আগে থেকে ভাড়া করা বাসের বুকিং বাস মালিকরা বাতিল করছেন। কিন্তু এসব করে কোনো লাভ হবে না। বিএনপির রোববারের মহাসমাবেশ যে কোন মূল্যে সফল করা হবে।’

মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলেন, ‘গত ১২ সেপ্টেম্বর আমরা মাদরাসা মাঠে বিভাগীয় সমাবেশের জন্য জেলা প্রশাসন ও আরএমপি’র কাছে আবেদন করেছি। ঠুনকো অজুহাতে প্রশাসন সেখানে অনুমতি দেয়নি। পরে নগরীর মনিচত্ত্বর, গণকপাড়া ও ফায়ার সার্ভিস মোড়ের যেকোনো এক জায়গায় অনুমতি চেয়ে লিখিত আবেদন করেছি। তবুও প্রশাসন বিএনপিকে সমাবেশের জন্য অনুমতি দেয়নি। ফলে আমরা মাদরাসা মাঠে সমাবেশ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

61Shares

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর