প্রথম পুনর্মিলনী উদযাপন করল জবি স্যোশ্যাল ওয়ার্ক অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন - লালসবুজের কণ্ঠ
    শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৩৭ পূর্বাহ্ন

    প্রথম পুনর্মিলনী উদযাপন করল জবি স্যোশ্যাল ওয়ার্ক অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশন

    • আপডেটের সময় : রবিবার, ২ অক্টোবর, ২০২২
    জবি প্রতিনিধি


    জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) সমাজকর্ম বিভাগের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত স্যোশ্যাল ওয়ার্ক অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের প্রথম পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়।
    বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় মিলনায়তনে শুক্রবার (৩০ সেপ্টেম্বর) সকাল ১০ টায় এ আনন্দ র‍্যালি মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়।
    স্যোশ্যাল ওয়ার্ক অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ মোস্তাফিজুর রহমানের এর সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক মো. ইমরান খান এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠান পরিচালিত হয়। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক।
    বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক ড. কামালউদ্দীন আহমদ, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন ও শিক্ষক সমিতির সভাপতিত্ব অধ্যাপক ড. মো. আবুল হোসেন এবং সমাজকর্ম বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. রাজিনা সুলতানা। এছাড়া বিভাগের শিক্ষকমন্ডলী ও শিক্ষার্থীবৃন্দরাও অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।
    প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. ইমদাদুল হক বলেন, বছরে একবার পুনর্মিলন, আড্ডা দেওয়াই অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের একমাত্র উদ্দ্যেশ্য নয় বরং সকল ধরনের উন্নয়নে অবদান রাখাতে হবে যেমন, ল্যাবরেটরি করা, যারা টাকার অভাবে পড়াশোনা করতে পারেনা তাদের কে সাহায্য করা, বিভাগের সহায়তা করা, বিভাগের সাথে নেটওয়ার্কিং করা, একটা সেতুবন্ধন করা, নিষ্ঠার সাথে কাজ করা।
    এছাড়া তিনি আরো বলেন চাকরি নিয়ে না ভেবে কিভাবে চাকরি তৈরি করা যায়, পদ পদবীর চিন্তা ছেড়ে কিভাবে কাজ করা যায় সে বিষয়ে ভাবাতে হবে। এটাই অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাফল্য। আমি বিশ্ববিদ্যালয়ে কি দিলাম সেটা নিয়ে চিন্তা করার সময় এসেছে। আমরা সরকারের ট্যাক্সের টাকায় পড়াশোনা করছি তাই এটাকে মূল্যায়ন করা উচিৎ।
    স্যোশ্যাল ওয়ার্ক অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সার্বিক কাজ সঠিকভাবে পরিচালনার জন্য অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. ইমরান খান একটি রুমের আবেদন করেন।
    এসময় আরও উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর, বিভাগীয় শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।
    সৌদিপ/স্মৃতি
    0Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published. Required fields are marked *

    এই বিভাগের আরও খবর