জয়পুরহাটের ২৫ টাকা কেজি সজনে ডাঁটা ঢাকায় ১০০ - লালসবুজের কণ্ঠ
    মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৩:০৮ পূর্বাহ্ন

    জয়পুরহাটের ২৫ টাকা কেজি সজনে ডাঁটা ঢাকায় ১০০

    • আপডেটের সময় : শনিবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২২

    নিউজ ডেস্ক, রাজশাহী


    অনুকূল আবহাওয়া থাকায় চলতি মৌসুমে জয়পুরহাটে সজনে ডাঁটার ফলন ভালো হয়েছে। ফলে জেলার বিভিন্ন হাটবাজারে বেচাকেনা ভালো হচ্ছে সজনে ডাঁটা। যা স্থানীয় চাহিদা মিটিয়ে চলে যাচ্ছে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে। এতে চাষিরাও কম খরচে উৎপাদন করে লাভবান হচ্ছেন।

    চলতি মৌসুমের শুরুতে সজনে ডাঁটা ৮০ থেকে ১২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হলেও এখন জেলার বাজারগুলোতে ২৫ থেকে ৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তবে ঢাকায় সজনে ডাঁটার কেজি ১০০ টাকা বলে জানা গেছে।

    সজনেচাষি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, ফেব্রুয়ারি থেকে এপ্রিল পর্যন্ত সজনে ডাঁটার ফলন হয়। এর মধ্যে ফেব্রুয়ারির মাঝামাঝি থেকে এপ্রিলের মাঝামাঝি দুই মাস ভরা মৌসুম থাকে। এ সময় প্রতিদিন গড়ে জেলার বিভিন্ন বাজার থেকে ১০ টনেরও বেশি সজনে ডাঁটা ঢাকা, ময়মনসিংহ, রংপুর, নীলফামারী, ঠাঁকুরগাওসহ বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ হয়।

    সরেজমিনে জেলা শহরের নতুনহাটে দেখা গেছে, সদর উপজেলার বিভিন্ন এলাকার সজনে চাষিরা উৎপাদিত সজনে নিয়ে এসেছেন বাজারে। সজনের আঁটি রাখতেই পাইকারি ব্যবসায়ীরা দরদাম শুরু করেন। লাভের মুখ দেখলেই তাদের কাছে বিক্রি করে দিচ্ছেন চাষিরা। পাইকারি ব্যবসায়ীরা এগুলো নিয়ে আবার ওজন দিয়ে আঁটি বাঁধছেন। পরে পিকআপ ভ্যানে সজনে বোঝাই করে পাঠিয়ে দিচ্ছেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ব্যবসায়ীদের কাছে।

    সজনে ডাঁটা ব্যবসায়ীরা জানান, দেশের সব অঞ্চলেই সজনে ডাঁটার কদর রয়েছে। এ বাজার থেকে ব্যবসায়ীরা প্রতিদিন গড়ে ছয় টনের মতো সজনে কেনেন। বাজারে প্রতি কেজি সজনে ২৫ থেকে ৩০ টাকায় কেনা হয়েছে। এগুলো তারা ঢাকা, ময়মনসিংহ, নীলফামারীসহ বিভিন্ন জেলায় পাঠান। সেখানে এগুলো ৪০ থেকে ৫০ টাকায় বিক্রি করলে খরচ বাদে কিছু লাভ থাকে।

    এ সময় সজনে চাষিরা জানান, সজনে গাছ শুকনা মাটিতে সহজে বেঁচে থাকে। এ জন্য বাড়ি বা বাগানের পাশে এবং শাকসবজির খেতের খুঁটি হিসেবেও এ গাছ লাগান তারা। গাছ বড় হয়ে গেলে কেটে দেন। যেকোনো বড় গাছের ডাল কেটে লাগানোর এক বছরের মধ্যে সজনে ডাঁটার ফলন হয়। গাছ বড় হলে ফলন বাড়ে। আগাছা কেটে দেওয়া ছাড়া সজনে বাগানে তেমন খরচ হয় না বলে জানান তারা।

    সজনে ডাঁটার সঙ্গে জড়িত কর্মচারী আব্দুল আজিজ, বিদ্যুৎ হোসেন বলেন, আমরা কয়েকজন শ্রমিক মিলে বস্তার ঢোপ করি। একটি বস্তার ঢোপে ১০০ কেজি সজনে ধরে। সেই ঢোপ ভর্তি করে দিলে আমরা ৬০ টাকা করে পাই। দিনে ৫০ থেকে ৬০ ঢোপ সজনে হয়। এতে আমাদের ৩ হাজার থেকে ৩৫০০ টাকা পর্যন্ত আয় হয়।

    জেলা কৃষি বিপণন বিভাগের মাঠ ও বাজার পরিদর্শক মো. সাখওয়াত হোসেন  বলেন, সজনে প্রোটিন জাতীয় সবজি। এর চাহিদা বেশ ভালো রয়েছে। একটি ছোট গাছে ৫ থেকে ৭ কেজি, বড় গাছে ২০ থেকে ৩০ কেজি পর্যন্ত সজনের ফলন হয়। বর্তমান বাজারে ২৫ থেকে ৩৫ টাকা পর্যন্ত এটি পাইকারিতে বিক্রি হচ্ছে।

    আর খুচরায় ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি। জয়পুরহাট থেকে কিনে বিভিন্ন জেলায় সজনে বিক্রির জন্য ব্যবসায়ীরা নিয়ে যাচ্ছেন বলে জানান তিনি।

    নিউজ ডেস্ক/শ্রুতি 

    0Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর