চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে তিনজন মৃত্যুর পরেও অরক্ষিত রেলগেট - লালসবুজের কণ্ঠ
    বৃহস্পতিবার, ১৮ অগাস্ট ২০২২, ০৫:১১ পূর্বাহ্ন

    চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে তিনজন মৃত্যুর পরেও অরক্ষিত রেলগেট

    • আপডেটের সময় : বুধবার, ৩ আগস্ট, ২০২২

    রাজশাহী প্রতিবেদক:


    চাঁপাইনবাবগঞ্জে ট্রেনে কাটা পড়ে তিনজনের মৃত্যুর ৬ মাস পেরিয়ে গেলেও এখনও অরক্ষিত রয়েছে গণকা-বিদিরপুর মোড়ের রেল গেটটি। ফলে অনেকটা বাধ্য হয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে পারাপার করছে অসঙ্খ্য যানবাহনসহ পথচারীরা। এতে আবারও যে কোন সময় দূর্ঘটনা ঘটতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন স্থানীয়রা।

    জানা যায়, চলতি বছরের ২৪ জানুয়ারি সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার আলীনগর হাজির মোড়ে অরক্ষিত রেলক্রসিং পার হওয়ার সময় চাঁপাইনবাবগঞ্জ রেলস্টেশন থেকে ছেড়ে যাওয়া রাজশাহীগামী রাজশাহী মেইল ট্রেন একটি ভটভটিকে ধাক্কা দিলে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত হন। নিহতরা হলেন- ভটভটির চালক চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর উপজেলার আমনুরা কেন্দুল গ্রামের নাইমুল হক (৪০), দুই যাত্রী চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌর এলাকার আলীনগর ভূতপুকুর গ্রামের আবদুল গণির ছেলে ফুলচান আলী (৫৫) ও রইস উদ্দীনের ছেলে শেহের আলী (৪৫)।

    স্থানীয় বাসিন্দা শফিউল আলম জানান, তিনজন টেনে কাটা পড়ে মৃত্যুর পর প্রশাসনের ঊর্দ্ধতণ কর্মকর্তারা স্থায়ীভাবে রেল গেট নির্মাণসহ গেটম্যান নিয়োগের আশ্বাস দিয়েছিলেন। তার পরের দিন পৌরসভার পক্ষে বাঁশের তৈরি অস্থায়ী গেট বসানো হয়। গেট নির্মাণের পর থেকে পৌরসভার দুই আনসার সদস্য ট্রেন আসা-যাওয়ার সময় এই গেট নিয়ন্ত্রণ করেন প্রায় এক মাস। তবে এরপর আর গেট নিয়ন্ত্রণ করতে যাননি পৌরসভার আনসার সদস্যরা। এতে আবারও অরক্ষিত হয়ে পড়েছে।

    রোববার দুপুরে কথা হয়, আলীনগর গ্রামের রিকশা চালক এরফান আলীর সঙ্গে। তিনি জানান,গেটম্যান থাকার সময় নির্বিগ্নে সব ধরনের যানবাহনসহ পথচারীরা পারাপার হত। এখন গেটম্যান না থাকায় জীবনের ঝুুঁকি নিয়ে তাঁদের রেল রেলক্রসিং পার হতে হচ্ছে। ফলে আবারও যে কোন সময় দূর্ঘটনা ঘটার আশঙ্কা রয়েছে।

    ট্রলি চালক আশরাফুল ইসলাম জানান,সারাদিনে অনেক যানবাহন চলাচল করে এই রেল রেলক্রসিং দিয়ে। তারা অনেকে খেয়াল করেনা। যার কারনে চট্রগ্রামের মত এখানেও ঘটতে পারে দূর্ঘটনা। তখন এর দায় কে নিবে। তিনি দ্রুত স্থায়ী রেল গেট নির্মাণ করে গেটম্যান নিয়োগ দিতে প্রশাসন এবং রেল বিভাগের প্রতি আহবান জানান।

    এ বিষয়ে বক্তব্য জানতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ পৌরসভার মেয়র মোখলেসুর রহমানকে মুঠোফোনে কল দেয়া হলেও তিনি ফোন রিসিভ না করায় তাঁর বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

    চাঁপাইনবাবগঞ্জ সদর ষ্টেশন মাষ্টার ওবায়দুল্লাহ বলেন, রেলক্রসিংটি অনুমোদিত নয়। সে কারনেই রেল বিভাগ ব্যবস্থা নিতে পারছে না।


    টিআর/এআর

    92Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর