ইটভাটার গ্যাসে পুড়লো কৃষকের স্বপ্ন, ক্ষতিপূরণের দাবি - লালসবুজের কণ্ঠ
    মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০৪:০৪ পূর্বাহ্ন

    ইটভাটার গ্যাসে পুড়লো কৃষকের স্বপ্ন, ক্ষতিপূরণের দাবি

    • আপডেটের সময় : রবিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২২
    লালসবুজের কণ্ঠ রিপোর্ট, লালমনিরহাট


    লালমনিরহাট সদর উপজেলার মোগলহাট কর্ণপুরের ইটভাটার গ্যাসে কৃষকদের ফসলি জমি পুড়ে ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। ক্ষতিগ্রস্ত জমির পরিমাণ প্রায় বারো হেক্টর। এতে ক্ষতিগ্রস্ত ২ শতাধিক কৃষক ২ ঘণ্টাব্যাপী সড়ক অবরোধ করে রাখে।
    রবিবার (১৭ এপ্রিল) সকালে কৃষকরা তাদের ফসলের ক্ষতি পূরণের দাবিতে মোগলহাট-লালমনিরহাট মহাসড়ক অবরোধ করে।
    এর আগে শনিবার রাতে উপজেলার মোগলহাট ইউনিয়নের বিরামপুর গ্রামের টু-স্টার ইটভাটায় গ্যাস দিয়ে ইট পড়ানোর সময় উতপ্ত বাতাসের কারণে উত্তর দিকে প্রবাহিত হওয়ায় কৃষকের অনেক আবাদি জমির ধান ও ভুট্টার ব্যাপক ক্ষতি হয়। এ ঘটনায় ভুক্তভোগী কৃষক ও তাদের পরিবারের সদস্যরা রবিবার সকালে আবাদি জমির ফসলের ক্ষতিপূরণের দাবিতে লালমনিরহাট-মোগলহাট সড়কের বিরামপুর এলাকায় ব্যারিকেড দেয়। এ সময় প্রায় ২ শতাধিক কৃষক ও তাদের পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।
    স্থানীয় কৃষক আল আমিন জানান, আমাদের আবাদি জমির দুইদিকে দুইটি ভাটার কারণে বরাবরই আমারা ক্ষতিগ্রস্ত হই। এবার আমি প্রায় তিন বিঘা জমিতে ধান চাষ করেছি। ওই জমির ফসল দিয়েই আমার সারা বছর খাবার যোগান হয়। কিন্তু ভাটার গ্যাসের কারণে আমার সব ফসল জমিতেই পুড়ে গেলো। ধান ছাড়াও আমাদের এলাকার ভুট্টা, গাছ, বাঁশসহ সব ফসলের ক্ষতি হয়েছে। এ বিষয়ে অভিযোগ দেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।
    কৃষক মেহের আলী বলেন, আমার ৫ সদস্যের পরিবার। আমি এক একর জমির ধান দিয়ে সারা বছর খাবার যোগাই। এটাই আমার একমাত্র আয়ের জায়গা। এখন আমি কী করবো? আমার স্বপ্ন ক্ষেতেই পুড়ে গেলো। শুধু আমি নই, এই এলাকার শতাধিক কৃষকের স্বপ্নের ফসল এই ভাটার গ্যাসে নষ্ট হয়ে গেছে।
    এ ছাড়া কৃষক মিরাজ, কৃষক আবু বক্কর সিদ্দিক, কৃষক ফজলু, কৃষক ফজলার রহমানসহ শতাধিক কৃষকদের ফসলের ক্ষতি হয়েছে। তাদের দাবি, পুড়ে যাওয়া ফসলের দ্রুত ক্ষতিপূরণ ও পরবর্তীতে এমনটা যেন আর ঘটে তার স্থায়ী সমাধান কার হোক।
    সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও মোগলহাট ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের উপস্থিতিতে ইটভাটার বর্তমান কার্যক্রম বন্ধ এবং কৃষকের আবাদি জমির ক্ষয়-ক্ষতির ক্ষতিপূরণের আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে কৃষকরা অবরোধ প্রত্যাহার করেন। বর্তমান সড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে।
    এ বিষয়ে লালমনিরহাট সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) মাহমুদা মাসুম বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকদের ক্ষতি পূরণের ব্যবস্থা করা হবে। ঘটনাস্থলে গিয়েছিলাম। ওই ইটভাটার কাউকে খুঁজে পাইনি। তবে একজন কর্মচারী ছিলো আমরা দ্রুত ভাটার সকল কাগজপত্র নিয়ে ডেকেছি। ভাটাটি অবৈধ হলে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
    আহসান/শ্রুতি 
    0Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর