সৌর বিদ্যুতে আলোকিত হচ্ছে বরেন্দ্রে অঞ্চল - লালসবুজের কণ্ঠ
    রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন

    সৌর বিদ্যুতে আলোকিত হচ্ছে বরেন্দ্রে অঞ্চল

    • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২১ জুন, ২০১৯

    আসাদুজ্জামান মিঠু,বরেন্দ্র অঞ্চল: রাতে গ্রামের মেঠো পথ দিয়ে চলতে অন্ধকারে গা সিড়ে উঠতো। পাড়া-মহল্লা ছিলো ভূতুড়ে। সন্ধা লাগলেই রাস্তায় দেখা মিলতো না কোন মানুষের। গ্রামের সে চিত্র পাল্টাতে শুরু করেছে। গ্রামের মেঠোপথ গোরস্থান মসজিদ মন্দির এখন রাতে সৌর বিদ্যুতের আলোয় আলোকিত হয়ে উঠেছে। রাতের গ্রাম দেখলে এখন যে কেউ মনে করবেন এগুলো পৌরসভা বা সিটি করপোরেশনের দেয়া আলো।

    কিন্তুু না পৌরসভা ও সিটি কেেপারেশনের দেয়া কোন আলো নয়। ত্রান পূণবাসন-দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসূচির আওতায় সৌর বিদ্যুতের আলোতে জ্বলছে বরেন্দ্র অঞ্চলে গ্রামীণ সড়ক বাতি। আলোর ফুরকানি ছড়াচ্ছে গ্রামে গ্রামে।

    রাজশাহী জেলা ত্রান পূণবাসন ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের তথ্য মতে,২০১৬ সাল থেকে রাজশাহী জেলার বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে হুম সিস্টেম সোলার স্থাপন ও মেঠোপথে স্ট্রিট লাইট বসানোর কাজ শুরু হয়েছে। ২০১৬ অর্থ বছর থেকে চলতি ২০১৮ অর্থ বছর পর্যন্ত তিন বছরে জেলার ৭২ ইউনিয়নের মেঠোপথে ৬ হাজার ২১০ টি স্ট্রিট লাইট বসানো হয়েছে। এছাড়াও ১৪ টি পৌরসভায় ৭২টি ইউনিয়ন এলাকায় স্ট্রিট লাইটের পাশাপাশি স্কুল,কলেজ মসজিদ,মন্দির সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সোলার হুম সিস্টেম সার্ভিস আছে এক হাজার ৬১৬ টি। মোট রাজশাহী জেলায় আছে ৭ হাজার ৮১৬ টি স্ট্রিট লাইট ও সোর্লা হোম সার্ভিস সিস্টেমের মাধ্যমে আলোর ব্যবস্থা আছে।

    রাজশাহী জেলা ছাড়াও বরেন্দ্র অঞ্চলের হিসাবে পরিচিত,নওগাঁ,চাঁপাইনবাবঞ্জ ও নাটোর জেলার গ্রামের সড়কে জ্বলছে সৌর বিদুৎএর হাজার হাজার স্ট্রিট লাইট।

    প্রধানমন্ত্রীর ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ পৌঁছে দেয়ার অঙ্গিকারে গ্রামীণ সড়কেও সৌর বিদ্যুৎ আলো দিচ্ছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদফতরের গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার ও রক্ষণাবেক্ষণ কর্মসূচির আওতায় সৌর বিদ্যুতের এ সড়ক বাতি বসেছে।

    সম্প্রতি রাজশাহীর তানোর উপজেলার পাঁচন্দর ইউনিয়ন এলাকায় মেঠোপথে টিট লাইট স্থাপন করছিলেন। সেখানে ইউপি চেয়াম্যান আব্দুল মতিন উপস্থিত ছিলেন। কথা হয় তার সাথে, চেয়ারম্যান বলেন, তার ইউনিয়ন এলাকা মধ্যে যেখানে মানুষের চলাচল রয়েছে সেসব স্থানে সৌর প্যানেলের মাধ্যমে আলো পৌঁছানো হচ্ছে। রাতের আঁধারে সৌর বিদ্যুতের আলোয় নিরাপদে মানুষ চলাচল করছে। রাস্তাগুলো আলোকিত হওয়ায় এখানে এখন রাতে অপরাধ প্রবণতা অনেকাংশেই কমে এসেছে। এখন রাত নামলেই আলোয় আলোকিত হচ্ছে গ্রামীণ রাস্তাগুলো।

    গোদাগাড়ী উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের চান্দালায় গ্রামের একেবার প্রতান্ত্য অঞ্চল। সেখানে বসানো হয়েছে কয়েকটি সোলার প্যানেলে স্টিল লাইট ও। রাতে আলোকিত হয়ে গ্রাম,গোরস্থান ও রাস্তা।

    চান্দালায় গ্রামের জালাল উদ্দিন নামের এক কলেজের প্রভাষকের সাথে কথা হয়। তিনি জানান,

    আমাদের গ্রাম ইউনিয়নের মধ্যে। গ্রামে বিদ্যুৎ থাকলেও রাস্তা বা গোরস্থানে সরকারী ভাবে কোন লাইটের ব্যবস্থা ছিল না। গত বছর থেকে স্থানীয় ইউনিয়নের মাধ্যমে সৌর প্যানেলের মাধ্যমে গ্রামের রাস্তায় স্ট্রিট লাইট দেয়া হয়েছে। তাতে করে গ্রামের চিত্রটা পাল্টে গেছে। এখন রাতে গ্রাম আলোময় হয়ে থাকছে। গ্রামের মানুষ রাতে নির্ধায় চলাচল করতে পারছে।

    রাজশাহী জেলা ত্রান ও পূণবাসন কর্মকর্তা আমিনুল হক জানান,প্রধানমন্ত্রীর ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ ও বিদ্যুৎ সাশ্ররয় লক্ষ্যে সারাদেশে গ্রামগঞ্জে সৌর বিদ্যুৎ প্রকল্প নেয়া হয়েছে। তার অংশ হিসাবে ২০১৬ সাল থেকে প্রকল্পটির যাত্রা রাজশাহীতেও শুরু হয়েছে। এ সৌর বিদ্যুতের কারণে একদিকে বিদ্যুৎ’ সাশ্রয়ী হবে অন্য দিকে গ্রামে মানুষ অন্ধকার থেকে আলোকিত রাস্তায় রাতে চলাচল করবে।

    এ কর্মকর্তা আরো জানান,সোলার হুম সার্ভিস সিস্টেম বলতে গ্রামের মসজিদ,মন্দির শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের ভিতরে বসানো লাইটকে বুঝানো হয়েছে। আর স্ট্রিট লাইট হলো,গ্রামের মেঠোপথে বিভিন্ন গুরুতপূণ স্থানে মানুষের চলাচল বেশি। যেমন,রাস্তার মোড়ে মোড়ে বাকা রাস্তার মিডিলে ইত্যাদি। শুধু গ্রামেই নয়,সোলার বা সৌর বিদ্যুৎ সিটি করপোরেশন এলাকাতেও অনেক দেয়া হয়েছে।

    73Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর