1. [email protected] : News room :
সিলেটে টানা বর্ষণে শতাধিক গ্রাম পানিবন্দি,পাঠদান বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে - লালসবুজের কণ্ঠ
শনিবার, ২০ জুলাই ২০২৪, ০২:৩৭ পূর্বাহ্ন

সিলেটে টানা বর্ষণে শতাধিক গ্রাম পানিবন্দি,পাঠদান বন্ধ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে

  • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ১২ জুলাই, ২০১৯

শাহেদুর রহমান জুনেদ, সিলেট থেকে:

সিলেটে গত কয়েক দিনের টানা বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে প্রায় শতাধিক গ্রামের মানুষ পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন। অঝোর ধারায় বৃষ্টির কারণে শুক্রবারও বিভিন্ন উপজেলার নিচু এলাকাগুলো নতুন করে প্লাবিত হয়েছে।

সিলেটের সুরমা, কুশিয়ারা, ধলাই ও পিয়াইন সহ ছোট -বড় সকল নদ- নদীতে প্রতিদিন পানি বাড়ছেই। অনেক নদ-নদীর পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে।
এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সুরমা নদীর পানি বিপদসীমার ১১১ সেন্টিমিটার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। একারণে জেলা সদরের সাথে বিভিন্ন উপজেলার যোগাযোগ ব্যাবস্থা বিচ্ছিন্ন রয়েছে। এতে ভোগান্তিতে রয়েছেন কয়েক হাজার মানুষ। বিভিন্ন জায়গায় শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে পানি ঢুকে পড়ায় পাঠদানও বন্ধ রয়েছে।

এদিকে নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় গোয়াইনঘাটের বিছনাকান্দি ও জাফলং পাথর কোয়ারি এবং কোম্পানীগঞ্জের ভোলাগঞ্জ ও ধলাই কোয়ারিতে সকল প্রকার কার্যক্রম বন্ধ রয়েছে। ফলে এসব পাথর কোয়ারির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট শ্রমিকরা বেকার হয়ে পড়েছেন।
টানা বর্ষণে সৃষ্ট বন্যায় সিলেটের অন্যতম পর্যটন স্পট সাদা পাথর পানিতে তলিয়ে যাওয়ায় ও প্রবল স্রোতের কারণে ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। ফলে গত বুধবার থেকে কয়েক হাজার পর্যটক ওই পর্যটন স্পট না দেখেই ফিরে যাচ্ছেন। এছাড়াও সেখানে সকল ধরনের পাথর ও বালু উত্তোলন বন্ধ রয়েছে। এতে লোকসান গুনতে হচ্ছে ব্যবসায়ীদের।

এছাড়া ধলাই, পিয়াইন ও জাহাজ খালি অববাহিকায় পানি বৃদ্ধির কারণে কোম্পানি গঞ্জ উপজেলার সবকটি হাওর তলিয়ে গেছে। উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের প্রায় ৮০ ভাগ গ্রামের মানুষ নিরাপদ আশ্রয়ে যাচ্ছে।


এদিকে কানাইঘাট উপজেলার ৯টি ইউনিয়নের মধ্যে দিঘীরপাড় পূর্ব, সাতবাঁক, বড়চতুল, রাজাগঞ্জ, ঝিঙ্গাবাড়ী, সদর, লক্ষীপ্রসাদ পূর্ব, লক্ষীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়নের নিম্নাঞ্চল পানিতে প্লাবিত হয়েছে। অনেক রাস্তাঘাট ও বাড়িঘরে পানি উঠে গেছে। মানুষের চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। বন্যা আতঙ্কে রয়েছেন নদীতীরবর্তী এলাকার লোকজন।
এদিকে গোয়াইনঘাট,জকিগঞ্জ,গোলাপগঞ্জ, ফেঞ্চুগঞ্জ ও বালাগঞ্জ উপজেলায় বন্যার পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।


সিলেটে পানি বৃদ্ধির কারনে ত্রাণ ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সঙ্গে বিভিন্ন উপজেলা প্রশাসন থেকে যোগাযোগ করা হয়েছে।

53Shares

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর