1. [email protected] : News room :
রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলের বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে হচ্ছে ডাবল সার্কিট বিদ্যুৎ লাইন - লালসবুজের কণ্ঠ
রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ০৫:৪৯ পূর্বাহ্ন

রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলের বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জে হচ্ছে ডাবল সার্কিট বিদ্যুৎ লাইন

  • আপডেটের সময় : বুধবার, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

লালসবুজের কণ্ঠ ডেস্ক:

দেশের কৃষিজ অর্থনীতির প্রাণকেন্দ্র উত্তরবঙ্গের রাজশাহী ও রংপুর অঞ্চলের ক্রমবর্ধমান বিদ্যুৎ চাহিদা মেটাতে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলায় ৪০০ কে.ভি. ক্ষমতাসম্পন্ন ডাবল সার্কিট লাইন স্থাপন করবে বিদ্যুৎ বিভাগ। আর এ লাইন দিয়ে ভারত থেকে বিদ্যুৎ আমদানি করে দেশের চাহিদা মেটানো হবে।

জানা গেছে, বিদ্যুৎ আমদানিতে সরকারের সবচেয়ে ভরসার জায়গা ভারত। ভারতের ঝাড়খন্ড রাজ্যের নির্মিতব্য কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ কেন্দ্র থেকে উৎপাদিত হবে ১৬০০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ। সেই বিদ্যুৎ আমদানির জন্য ২০১৭ সালের ৫ নভেম্বর বাংলাদেশের বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের সঙ্গে ভারতের ‘আদানি পাওয়ার লিমিটেডের’ (এপিজেএল) সঙ্গে দুটি চুক্তি হয়। চুক্তি অনুযায়ী ২০২২ সালের জানুয়ারি থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ শুরু হওয়ার কথা রয়েছে।

ভারত থেকে আমদানিকৃত বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে সরবরাহের জন্য ২০২২ সালের আগে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার রহনপুর থেকে মনকষা সীমান্ত পর্যন্ত ৪০০ কে.ভি. সঞ্চালন লাইন নির্মাণ প্রকল্প হাতে নিয়েছে বিদ্যুৎ বিভাগ। ২২৫ কোটি ৪৯ লাখ টাকা ব্যয়ের এ প্রকল্প বাস্তবায়ন করবে পাওয়ার গ্রিড কোম্পানি অব বাংলাদেশ লিমিটেড (পিজিসিবি)।

মঙ্গলবার (১৪ সেপ্টেম্বর) জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদ নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি পাস করা হয়।

প্রকল্পের সার সংক্ষেপ থেকে জানা গেছে, পিজিসিবি কর্তৃক বাস্তবায়নাধীন একটি প্রকল্পের আওতায় চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার রহনপুর থেকে বগুড়া পর্যন্ত ১০৪ ‍কি.মি. দীর্ঘ ৪০০ কে.ভি. সঞ্চালন লাইন নির্মাণ করা হচ্ছে। সেই গ্রিডের সাথে ভারত থেকে আমদানিকৃত বিদ্যুৎকেন্দ্রে সংযোগ স্থাপনের লক্ষ্যে নতুন এই প্রকল্পের মধ্যদিয়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলার গোমস্তাপুর উপজেলার রহনপুর ইউনিয়ন থেকে একই জেলার শিবগঞ্জ উপজেলার মনাকষা (বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তবর্তী সংযোগস্থল) ইউনিয়ন পর্যন্ত ২৮ কি.মি ৪০০ কে.ভি ডাবল সার্কিট সঞ্চালন লাইন স্থাপন করা হবে। চলতি বছরে নির্মাণ কাজ শুরু করে ২০২১ সালের মধ্যে সেটি শেষ করার পরিকল্পনা রয়েছে সরকারের।

প্রকল্পটির বিষয়ে জানতে চাইলে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান বলেন, ‘এই প্রকল্প বাস্তবায়নের মধ্য দিয়ে দেশে বিদ্যুতের চাহিদা পূরণ সম্ভব হবে। সেই সঙ্গে ডাবল সার্কিট লাইন হওয়ায় এই লাইন দিয়ে বিদ্যুৎ আমদানি ও রফতানি করা যাবে। ভবিষ্যতে যদি আমাদের বিদ্যুৎ উদ্বৃত্ত থাকে তাহলে আমরা সেটি রফতানিও করতে পারব।’

1.1K+Shares

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর