ভোট উৎসবের অপেক্ষায় কানসাটের ৩১০০০ মানুষ - লালসবুজের কণ্ঠ
    রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০৪:৩৮ পূর্বাহ্ন

    ভোট উৎসবের অপেক্ষায় কানসাটের ৩১০০০ মানুষ

    • আপডেটের সময় : সোমবার, ১৩ জুন, ২০২২

    চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:


    আগামী বুধবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে শিবগঞ্জ উপজেলার কানসাট ইউপি নির্বাচন। এ নির্বাচনকে ঘিরে ইতি মধ্যে প্রচার প্রচারণা শেষ করেছেন দুই চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ সাধারন ওয়ার্ডের সদস্য প্রার্থীরা।

    প্রতীক বরাদ্দের পর থেকেই তাঁরা কাক ডাকা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত চষে বেড়িয়েছেন প্রতিটি ইউনিয়নের অলিগলি।

    তবে নিয়ম অনুযায়ী গতকাল সোমবার রাত আটটার পর থেকে বন্ধ হয়ে গেছে প্রচার প্রচারণা। প্রার্থীরা এখন বাড়ীতে বসেই ভোটের দিনের করনীয় ঠিক করছেন।

    অপর দিকে ভোটাররাও তাঁদের পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে ইতিমধ্যে মন স্থির করে ফেলেছেন।

    তাঁরা বলছেন,যোগ্য প্রার্থীকেই ভোট দিয়ে বেছে নিতে চান আগামী পাঁচ বছরের জন্য যোগ্য জনপ্রতিনিধি।

    এখানে চেয়ারম্যান পদে দুজনন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দীতা করছেন। তাঁরা হলেন-দুইবারের বর্তমান চেয়ারম্যান ও কানসাট ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি মো.বেনাউল ইসলাম (নৌকা) এবং জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী সেফাউল মুলক ( মোটরসাইকেল)।

    এ ছাড়া ৯টি ওয়ার্ডে ইউপি সদস্য (মেম্বার) পদে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন ৪০ জন প্রার্থী। অপরদিকে সাধারন সদস্য নারী তিনটি ওয়ার্ডের বিপরীতে প্রতিদ্বন্দীতা করছেন ১৬জন প্রার্থী।

    নির্বাচনকে ঘিরে ভোটারদের মধ্যে বিরাজ করছে উৎসবের আমেজ। তাঁদের দাবি ভোটের দিন সব ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে কঠোর হবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

    আব্বাস বাজার এলাকার প্রবীন ভোটার আতাউর রহমান জানান,গেল এক মাস ধরে এলাকায় শান্তি শৃঙ্খলার কোন বিঘ্ন সৃষ্টি হয়নি।

    প্রার্থীরা যে যার মত করে প্রচারণা চালিয়ে ভোট চেয়েছেন। ফলে ভোটের দিনও কোন সহিংসতা যেন না হয় সে দিকে প্রশাসনের প্রতি খেয়াল রাখার আহবান জানিয়েছেন তিনি।

    পুখুরিয়া এলাকার নারী ভোটার আসমা বেগম জানান,১৫ তারিখে ভোট দেয়ার জন্য অপেক্ষা করছেন তাঁরা।

    সৎ এবং যোগ্য প্রার্থীকে ভোট দিয়ে আগামী পাঁচ বছরের জন্য জনপ্রতিনিধি নির্বাচিত করতে চান তাঁরা। তাঁর দাবি এখানে যেহেতু চেয়ারম্যান পদে দুজন প্রার্থী রয়েছে ফলে অল্প ভোটের ব্যবধানে একজন প্রার্থী জয়লাভ করবে।

    তরুন ভোটার মোরশালিন হক এবং আবদুল কাইউম জানান,জীবনে প্রথমবারের মত তাঁরা এবার ভোট দিবেন।

    যে ব্যক্তি তরুনদের সাবির্ক বিষয়ে নজর দিবেন তাঁকেই তাঁরা ভোট দিতে চান। তাঁরা আরও বলেন,ইভিএমএ একটি আলোচিত যন্ত্র। যার জন্য অপেক্ষা করছেন তাঁরা।

    জানতে চাইলে জামায়াত সমর্থিত স্বতন্ত্র প্রার্থী সেফাউল মুলক বলেন, গত ইউপি নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী থাকার পর মাত্র ৪৬৪ ভোটের ব্যবধানে আমি পরাজিত হয়েছিলাম, বিজয়ী প্রার্থী বেনাউল ইসলাম পেয়েছিলেন ১০৬০২ ভোট, আমি পেয়েছিলাম ১০১৩৮ ভোট এবং বিএনরি প্রার্থী পেয়েছিলেন ৩৫৮৩ ভোট।

    এবার বিএনপির কোন প্রার্থী নেই। যেহেতু আমরা প্রায় প্রতিটি নির্বাচনে দেশব্যাাপী বিএনপির সাথে ঐক্যমত থেকে নির্বাচন করে আসছি।

    তারই ধারাবাহিকতায় কানসাট ইউপি নির্বাচনেও বিএনপির দনেতাকর্মী আমাকে সমর্থন দিয়েছে এবং ভোটও দিবেন। কোন রকম ষড়যন্ত্র না হলেও আমার বিজয় সুনিশ্চিত।

    নৌকার প্রার্থী বেনাউল ইসলাম বলেন,গেল দুই মেয়াদে আওয়ামী লীগের নেতা কর্মীরা যেভাবে আমার পাশে ছিল এবারও সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে সাথে রয়েছে।

    এছাড়া আমার উন্নয়ন দেখে দলমত নির্বিশেষে কানসাটের সাধারন আমাকে বিপুল ভোটে জয়লাভ করাবে।

    শিবগঞ্জ উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা তাসিনুর রহমান জানান, ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসক, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ প্রশাসনিক কর্মকর্তাগণ ভোট কেন্দ্রগুলো পরিদর্শন করেছেন।

    নিরপত্তার ক্ষেত্রে বিভিন্ন বাহিনী মোতায়েন থাকবে এবং কোন ধরনের বিশৃঙ্খলা ঘটার সম্ভাবনা নেই।

    কানসাট ইউপি নির্বাচনে ৯টি ওয়ার্ডে ১০টি ভোট কেন্দ্রে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। এখানে নারী-পুরুষ মিলিয়ে মোটর ভোটার সঙ্খ্যা ৩১ হাজার ৪শ ২৭।

    এর মধ্যে পুরুষ ভোটার হল-১৬ হাজার এবং নারী ভোটার ১৫ হাজার ৪শ ২৭জন।


    টি,আর/তন্বী

    14Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর