বিশ্বম্ভরপুরে অবৈধভাবে বালু বোঝাই ট্রাকটি আটক করেছে বিজিবি’র সদস্যরা - লালসবুজের কণ্ঠ
    শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৮:২২ অপরাহ্ন

    বিশ্বম্ভরপুরে অবৈধভাবে বালু বোঝাই ট্রাকটি আটক করেছে বিজিবি’র সদস্যরা

    • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০২২

    সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি


    সুনামগঞ্জের সীমান্তবর্তী বিশ্বম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর ইউনিয়নের রাজাপাড়া গ্রামের পাশে ধামালিয়া
    নদী থেকে অবৈধভাবে পুলিশ সুপারের নাম ভাঙ্গিয়ে বালু নিয়ে আসার সময় বালু বোঝাই দুইশত ফুটের
    ট্রাকটি আটক করেছে ২৮ বর্ডার গার্ড বিজিবি’র সদস্যরা। ট্রাকের মালিক মো. হোসেন মিয়া ।

    তিনি জেলার বিশ^ম্ভরপুর উপজেলার ধনপুর গ্রামের তরিংগা গ্রামের শাহ হোসেনের ছেলে। গতকাল মঙ্গলবার(৭ই জুন) ভোরে চোরাকারবারী মো. হোসেন মিয়া চোরাই পথে ট্রাক বোঝাই করে বালু নিয়ে সুনামগঞ্জে আসার পথে চিনাকান্দি বিজিবি’ ক্যাম্পের সামনে আসামাত্রই বিজি’িবর সদস্যরা বালু বোঝাই ট্রাকটি আটক করে। এ সময় ট্রাকেরমালিক মো. হোসেন মিয়া ও তার ড্রাইভার পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

    চিহিৃত চোরাকারবারী হোসেন মিয়ার নেতৃত্বে বেশ কয়েকজন চোরাকারবারী রয়েছেন যারা দীর্ঘদিন
    ধরে সরকারের রাজস্ব ফাকিঁ দিয়ে বিশ্বম্ভরপুরের ধামালিয়া নদী,তাহিরপুরের লাউড়েরগর যাদুকাটা নদীর পাড়
    থেকে রাতের আধাঁরে আইন শৃংখলা বাহিনীর চোখ ফাঁিক দিয়ে চোরাকারবারীরা রাতে ৩০/৩৫টি ট্রাকে
    বালু ও পাথর বোঝাই করে পলাশ বাজার হয়ে সুনামগঞ্জে নিয়ে আসা হয়। প্রতি ফুট বালু ৩০/৩৫ টাকায়
    এবং প্রতি ফুট পাথর সুনামগঞ্জে এনে বিক্রি করছে একশত থেকে দেড়শত টাকায়। ফলে প্রতিরাতে
    চোরাকারবারীরা অবৈধ পন্থায় হাতিয়ে নিয়ে বেশ কয়েক লক্ষ টাকা।

    স্থানীয় লোকজন নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানান,বিষয়টি নিয়ে প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা দ্রুত পদক্ষেপ
    না দিলে পর্যটন খ্যাত যাদুকাটা নদীর রুপ যেমন হারিয়ে যাবে অন্যদিকে সরকার বিপুল পরিমান রাজস্ব
    থেকে বঞ্চিত হবে বলে মনে করেন তারা। তারা জানান এই চোরাকারবারী চক্রের বিরুদ্ধে কারো মুখ খুলে
    বলার সাহস কারো নেই। কেহ প্রতিবাদ করলে তাদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি করার ভয় দেখানো হয়।
    এ ব্যাপারে আটককৃত ট্রাকের মালিক মো. হোসেন মিয়ার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করে
    ট্রাক আটকের বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি জানান বৈধভাবে সুনামগঞ্জের পুলিশ সুপারের কাজের জন্য
    ট্রাকে বালু বোঝাই করে আনার পথে বিজিবি’র সদস্যরা ট্রাকটি আটক করেন। বৈধপথে বালু বোঝাই
    ট্রাক কেন বিজিবির সদস্যরা আটক করবেন এমন প্রশ্নের উত্তরে হোসেন মিয়া ফোনের লাইনটি কেটে
    দেন।

    এ ব্যাপারে চিনাকান্দি বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার মো. আনোয়ার হোসেন বালু বোঝাই ট্রাক আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে,মালিকপক্ষ এখনো বৈধপন্থায় বালু নিয়ে যাওয়ার কাগজপত্র দেখাতে পারেনি।

    কুলেন্দু/স্মৃতি

     

    0Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর