বন্ধু দিবসের ১০০ বছর - লালসবুজের কণ্ঠ
    শনিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২২, ১২:৪৫ পূর্বাহ্ন

    বন্ধু দিবসের ১০০ বছর

    • আপডেটের সময় : রবিবার, ৭ আগস্ট, ২০২২

    নিউজ ডেস্ক,লালসবুজের কন্ঠ;


    ‘বন্ধু’এই ছোট্ট শব্দটির গভীরতা অনেক। আজ ৭ আগস্ট বিশ্বের অনেক দেশেই পালিত হচ্ছে ‘ফ্রেন্ডশিপ ডে’ বা বন্ধু দিবস। বন্ধুত্বের নেই কোনো দিনক্ষণ বা সীমা-পরিসীমা।

    বন্ধু মানেই মন খুলে কথা বলা, বিপদে-আপদে সব সময় ভরসা করা যায় এমন একজন। সবার জীবনেই এমন একজন বন্ধু থাকে। যার সঙ্গে আত্মার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। বন্ধু ছাড়া জীবন কাটানো খুবই কষ্টকর।

    প্রতিবছর আগস্টের প্রথম রবিবার পালিত হয় আন্তর্জাতিক বন্ধুত্ব দিবস পালিত হয়। এদিন বন্ধুরা একে অপরকে উপহার দেয়। বিভিন্নভাবে উইশ করে থাকেন।

    হাতে ফ্রেন্ডশিপ ব্রেসলেট পরিয়ে দেন। এ ছাড়াও সবাই মিলে আড্ডা দিয়েও উদযাপন করা হয় দিনটি। তবে প্রতিবছর যে বন্ধ দিবস পালন করা হয় সেটি দুই বন্ধুর সম্পর্ক অটুট রাখতে শুরু হয়নি।

    ব্যবসায়িক উদ্দেশ্যেই এর প্রচলন শুরু হয়েছিল। ১৯৩০ সালে এই কাজটি করেছিলেন বিশ্বখ্যাত উপহারসামগ্রী ও কার্ড বিক্রেতা প্রতিষ্ঠান হলমার্কের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা জয়েস হল।

    তিনি প্রতিবছর ২ আগস্ট যুক্তরাষ্ট্রে বন্ধুত্ব দিবস উদ্যাপনের বিষয়টি সামনে আনেন। এদিন কার্ড আদান-প্রদানের মাধ্যমে বন্ধু দিবস পালন করার চল শুরু হয়। অবশ্য তার সে প্রচেষ্টা অতটা সফল হয়নি।

    ১৯২২ সালের পরে এটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে। মূলত ১৯২২ সালেই এটি পরিচিতি পেয়েছিল মার্কিন মুলুকের জনগণের কাছে। ১৯৩৫ সালের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসে বন্ধু দিবসকে আগস্টের প্রথম রবিবারে পরিণত করে।

    এরপর এটি ব্যাপকভাবে ছড়িয়ে পড়ে পুরো যুক্তরাষ্ট্রে। ১৯৪০ সালের দিকে মানুষ বুঝতে পারে, এটা কোনো মহৎ উদ্দেশ্য নয়, বরং হলমার্কের কার্ড ব্যবসা বাড়ানোর ফন্দি।

    এরপর থেকে বন্ধু দিবস উদ্যাপন একরকম বন্ধই হয়ে যায়। ১৯৩০ সালে উদযাপন শুরু করলেও এর ধারণা ১৯১০ সালেই দিয়েছিল জয়েস হল।


    লালসবুজের কন্ঠ/তন্বী

    30Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর