পাবনা বিসিক শিল্পনগরী জলাবদ্ধতায় সীমাহীন দুর্ভোগ - লালসবুজের কণ্ঠ
    সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৮:১৩ পূর্বাহ্ন

    পাবনা বিসিক শিল্পনগরী জলাবদ্ধতায় সীমাহীন দুর্ভোগ

    • আপডেটের সময় : মঙ্গলবার, ৭ জুন, ২০২২

    পাবনা প্রতিনিধি


    রাস্তাঘাট ভাঙ্গা, জলাবদ্ধতাসহ নানা সমস্যায় জর্জরিত পাবনা বিসিক শিল্পনগরী। কারখানা থেকে মালামাল পরিবহণ করতে গিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগে পড়ছেন শিল্প উদ্যোক্তা ব্যবসায়ীরা। কাদাপানি একাকার হয়ে পড়ে
    একটু বৃষ্টিতে।

    গাড়ি চলাচল করাও যেন কষ্টসাধ্য হয়ে পড়েছে। বছরের বেশিরভাগ সময় জলাবদ্ধতায় করুণ পরিস্থিতির মধ্যে থাকতে হয় বেশিরভাগ শিল্প প্রতিষ্ঠানকে। বর্ষা মৌশুমে সামান্য বৃষ্টির হলেই ড্রেন উপচে পানি প্রবেশ করে প্রতিষ্ঠানের মধ্যে। কর্তৃপক্ষের সাথে বারবার আলোচনা করেও কোনো প্রতিকার পাচ্ছেন না শিল্পাঞ্চলের ব্যবসায়ীরা।

    বিসিক সূত্র জানায়, পাবনা পৌর সদরের ছাতিয়ানী এলাকায় ১৯৬২ সালে ৯০ একর জায়গা নিয়ে স্থাপিত হয় বিসিক শিল্প নগরী। পরবর্তীতে আরো ৩৫ একর জায়গা অধিগ্রহণ করে বর্তমানে ১২৫ একর বিশাল জায়গা নিয়ে জেলার এই ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প অঞ্চলে ব্যবসা বাণিজ্য করছে প্রতিষ্ঠানগুলো।

    পাবনা বিসিকের তিনটি প্রবেশ পথে ৪ কিলোমিটার সড়ক ও ৮ কিলোমিটার ড্রেন রয়েছে। এখানে ছোট বড় মিলিয়ে শিল্প প্রতিষ্ঠান রয়েছে ২০৩টি। এর মধ্যে দেশের অন্যতম শিল্প প্রতিষ্ঠান স্কয়ার গ্রুপ, এ আর গ্রুপের রাইস মিল, ময়েজ উদ্দিন স্টিল, বনলতা সুইটসসহ বেশ কিছু স্বনামধন্য প্রতিষ্ঠান রয়েছে এই বিসিক শিল্প নগরীতে। সব মিলিয়ে প্রায় ১০ হাজার শ্রমিকের কর্মসংস্থান রয়েছে পাবনা বিসিক শিল্প নগরীতে।

    এই শিল্প নগরীতে অবস্থিত প্রতিষ্ঠানগুলো থেকে বছরে প্রায় একশো কোটি টাকা সরকারের রাজস্ব আদায় হয় বলে জানিয়েছে কর্তৃপক্ষ। দেশের ব্যবসা বাণিজ্যের উন্নয়ন সাধনে একইস্থানে নানা প্রতিষ্ঠানের জায়গা দিয়ে সরকারি তত্ত্বাবধানে দেশের ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পের উন্নয়ন সাধনে বিসিক কাজ করে যাচ্ছে।

    তবে পাবনা বিসিক শিল্প নগরীর বেহালদশায় ক্ষুব্ধ ব্যবসায়ীরা। অপরিকল্পিত সড়ক ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা ভেঙ্গে পড়ার কারণে বেশিরভাগ সময় জলাবদ্ধতার শিকার হতে হয় শিল্প কলকারখানাগুলোকে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা মালবাহী পরিবহণগুলোকে পড়তে হচ্ছে নানা সমস্যার মধ্যে। বিসিক শিল্প নগরীর মধ্যে অবস্থিত সড়কের বেহালদশার কারনে মালবাহী পরিবহনগুলো সময়মত পণ্য ডেলিভারি করতে পারছে না।

    আবার খানাখন্দের কারণে ক্ষতি হচ্ছে যানবাহনের। মালামাল সরবরাহসহ পণ্য উঠানামায় পড়তে হচ্ছে চরম বিপাকে। পাবনা বিসিকে পণ্য নিয়ে আসা পরিবহন চালক মতিউর, মোকছেদ আলী বলেন, পাবনা বিসিক শিল্প নগরীর মত এতো করুণ অবস্থা আর কোথাও নেই। এখানে মাল নিয়ে আসলে প্রতিটি যানবাহনের ক্ষতি গুনতে হয়। খাদে পড়ে ট্রাকের পাতিসহ ইঞ্জিনের ক্ষতি হয়।

    আবার সড়কের বেহাল দশার কারণে মালামাল উঠানামায় সময় লাগে বেশি। বিসিকের ব্যবসায়ী মোশারফ হোসেন ও মুক্তার হোসেন খান বলেন, এখানে আমরা যারা সরকারির সমস্ত রাজস্ব ভ্যাট ট্যাক্স দিয়ে ব্যাবসা করছি তারা বিসিকের সেই সকল সুযোগ সুবিধা পাওয়ার কথা সেটির বেশিরভাগই নেই। অনেকবার আলাপ আলোচনা হয়েছে, কিন্তু কোনো লাভ হয়নি।

    জলাবদ্ধতায় বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানের গোডাউনের মালামাল নষ্ট হয়ে যায়। ড্রেনেজ রাস্তা দু’টোই খারাপ। সরু রাস্তা ভেতরে জায়গা কম বলে প্রধান সড়কের উপরে গাড়ি রেখে দিতে হয়। কর্তৃপক্ষকে বললেও তারা পদক্ষেপ নিচ্ছেন না। পাবনা বিসিক শিল্প নগরীর উপ-মহাব্যবস্থাপক রফিকুল ইসলাম বলেন, ঐতিহ্যবাহী এই শিল্প নগরীতে ছোট বড় মিলিয়ে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠান তাদের ব্যবসায়ী কার্যক্রম পরিচালনা করছেন। সড়ক ড্রেনেজের সমস্যা রয়েছে। বিষয়টি বিসিকের উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

    মাস্টার প্লান দেয়া আছে। তবে বাজেট সংকটের কারনে সমস্যার সমাধান হচ্ছেনা। তবে সম্প্রতি এক নম্বর গেটের কিছু অংশের কাজ করা হয়েছে। আগামীতে বাজেট আসলে সমস্যার সমাধান করা হবে। আশা করছি বিসিক আধুনিকতার ছোঁয়া পাবে।

    কনক/স্মৃতি

    14Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর