পরিণাম ( ছোটগল্প ) - লালসবুজের কণ্ঠ
    সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৭:৫৭ পূর্বাহ্ন

    পরিণাম ( ছোটগল্প )

    • আপডেটের সময় : রবিবার, ১৭ এপ্রিল, ২০২২

    সবনাজ মোস্তারী স্মৃতি


    আমাদের আর এক সাথে বাকিটা পথ চলা হলো না। তোমার আর আমার পথ এখন ভিন্ন। অথচ দুজনের কথা ছিলো আমাদের পথ একই থাকবে। কখনো ভিন্ন হবে না।সেদিন কে জানত এত কাছে থেকেও আমরা এত দুরে যাবো! কারো জানা ছিলো না এমনটা হবে। তোমার হয়তোবা জানা থাকলেও থাকতে পারতো।

    একটা সময় মনে হত আমি তোমাকে ছাড়া কেমন করে বেঁচে থাকবো! কিন্তু দেখো আমি তোমাকে ছাড়া ঠিকই বেঁচে আছি।আর খুব ভালো ভাবেই বেঁচে আছি।যে বিধাতার কাছে প্রতিদিনের প্রার্থনায় তোমাকে চাইতাম, সে প্রার্থনায় আজ বলি তুমি আমার জীবন থেকে চলে যাওয়াতেই ভালো হয়েছে। আমি আগের থেকে অনেক বেশি ভালো আছি।এখন প্রতিদিন শান্তিতে শ্বাস প্রশ্বাস নিতে পারি। দম ছেড়ে বাঁচতে পারি। তোমার জন্য কষ্ট করে অপেক্ষা করতে হয় না, একটা ফোন বা মেসেজের।
    অপেক্ষা মৃত্যুর থেকেও বেশি কষ্টের সেটা তোমার হয়তো জানা ছিলো না। তাইতো প্রতিনিয়ত অপেক্ষাই রাখতে আমায়।
    এখন আর কোনো অপেক্ষা নেই,কোনো দমবন্ধ করা শাসন নেই, এইতো বেশ ভালো আছি আমি।

    আর তুমি!

    ভালো আছো তো?

    খবর পেয়েছি যার জন্য আমার সাথে প্রতারনা করেছিলে তার জন্যই নাকি ঘুমের ঔষুধ খেয়ে আত্মহত্যা করতে গিয়ে ১৫ দিন হাসপাতালের বিছানায় পড়ে থাকতে হয়েছে!হাতে নাকি ব্লেডের ছিন্নবিছিন্ন ক্ষত।মাঝে মাঝে খুব জানতে ইচ্ছে করে তুমি কেনো বা কোন টানে চলে গিয়েছিলে!আমাকে দেখানো স্বপ্নগুলো তার সাথে পূরণ করতে পেরেছো কিনা!

    এসব জানতে চাওয়া দোষের কিছু না।

    অধিকার হারানো মানেই সুখ দুঃখের খোঁজ খবর,নেওয়ার ইচ্ছা হারানো-এই অঘোষিত অপছন্দের নিয়ম মানুষের মানতে ইচ্ছে করে না,তবুও মেনে নিতে হয়।মেনে নেয়।পৃথিবী যতদিন আছে, মানুষ তার অনিচ্ছার দাস হিসেবেই পরিচয় দিয়ে যাবে।অনিচ্ছাকে ইচ্ছা বানিয়ে এখনো মানুষের এই মিথ্যে আত্মপরিচয় দেওয়াটা যেন আজ গর্বের।সেই গর্বে বুকটা ফুলে উঠে না,একরাশ হাহাকার স্থবিরতা এসে মিথ্যে গর্বের সাথে যোগ দেয়।

    আমি এখন খুব ব্যস্ত জীবন পার করছি। কি ভাবে যে দিনগুলো পার হয়ে যাচ্ছে টেরো পাই না। কিন্তু একটা সময় আমার চারদিকে নিঃসঙ্গতার বাতাস বইতো।

    সেদিন তুমি একটা বারের জন্যও আমার কথা ভাবোনি বা জানার ইচ্ছা পোষনও করোনি আমি কেমন আছি।অথচ এখন তুমি নাকি, তোমার বন্ধুদের সামনে প্রায় আমার কথা বলো,জানতে চাও আমি কি করছি, কেমন আছি,বিয়ে করেছি কিনা আর আমার কথা বলে আফসোস করো।

    এটা কি সত্যি?

    সত্যি কি মিথ্যা তা আমার আর জানতে ইচ্ছে করে না।

    যেদিন তুমি আমাকে ছেড়ে চলে গিয়েছিলে সেদিন তোমাকে কিছুই বলিনি কারণ আমি সেদিনও বিশ্বাস করতাম তোমাকে। কিন্তু তুমি সে বিশ্বাস রাখোনি। নিজ হাতে শেষ করে দিয়েছিলে আমার ভালোবাসা আর বিশ্বাস। আমার ভালোবাসা আর বিশ্বাস তুমি শুধু ব্যবহার করেছিলে তা আমি বুঝতেই পারিনি।আমি সেদিন অবশ্য তোমার মত আত্মহত্যা করতে যায়নি বা তোমাকে অভিশাপও দেইনি।মুখ বুজে সব সহ্য করেছিলাম।

    শুধু চেয়েছিলাম তুমি ভালো থাকো যার সাথেই থাকো।

    সব কিছুর তো একটা পরিনাম থাকে। যে কাঁদায় সেও একদিন কাঁদে শুধু সময়ের ব্যবধান থাকে।একদিন আমাকে কাঁদিয়েছিলে বলে আজ হয়তো তুমি কাঁদছো, কষ্ট পাচ্ছো।আমাকে কষ্ট দিয়ে, কাঁদিয়ে,আমার ভালোবাসা,বিশ্বাস ব্যবহারের পরিণাম কি হলো বলতো!

    আজ ঠিক একই ভাবে তোমার সাথে অন্য একজন প্রতারনা করলো।তোমার বিশ্বাস, তোমার ভালোবাসা ব্যবহার করে স্বার্থ শেষ হবার সাথে সাথেই চলে গেলো ঠিক তুমি যেমন আমাকে ছেড়ে চলে গিয়েছিলে।প্রায় চার বছর হতে চলল, আমি কিন্তু সব ভুলে গিয়েছিলাম। নিজেকে নিয়ে ব্যস্ত হয়ে গেছিলাম,কিন্তু কি বলতো মানুষ সব কিছু ভুলে গেলেও প্রকৃতি কিছুই ভুলে না। ঠিক সময়ে এসে যার যা প্রাপ্প তা দিয়ে যায়।তাই মনে রেখো সব কিছুর সাথে প্রতারনা করতে পারলেও প্রকৃতির সাথে তা তুমি করতে পারবে না কখনো, তার পরিনাম তুমি একদিন না একদিন পাবে।

     সমাপ্ত

    53Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর