পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দাওয়াত পাবে বিশ্বব্যাংক - লালসবুজের কণ্ঠ
    রবিবার, ০৩ জুলাই ২০২২, ০১:৫৫ পূর্বাহ্ন

    পদ্মা সেতুর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে দাওয়াত পাবে বিশ্বব্যাংক

    • আপডেটের সময় : শনিবার, ৪ জুন, ২০২২

    নিউজ ডেস্ক, লালসবুজের কণ্ঠ:


    সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, আগামী ২৫ জুন সকাল ১০টায় পদ্মা সেতুর উদ্বোধন করেবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ওই অনুষ্ঠানে বিশ্ব ব্যাংককেও দাওয়াত দেওয়া হবে। এছাড়া দেশের সকল বিরোধী, ডান-বামসহ সবাই দাওয়াত পাবেন। কারণ এটি জাতীয় অনুষ্ঠান।

    আজ (শনিবার) মহাখালীর ব্র্যাক সেন্টারে ব্র্যাকের আয়োজনে নারী গাড়িচালকদের প্রশিক্ষণ পরবর্তী সার্টিফিকেট বিতরণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

    বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া দাওয়াত পাবেন কি না, এমন প্রশ্নের তিনি বলেন, নিয়মের মধ্যে পড়লে অবশ্যই দেবো। এখন উনি তো সাজাপ্রাপ্ত। বিএনপি চেয়ারপারসন হিসেবে পাওয়ার কথা। তবে আমরা নিয়ম জেনে দেবো। বিরোধীরা সবাই পদ্মা সেতুর উদ্বোধনের অনুষ্ঠানে দাওয়াত পাবে। বিএনপি নেতারাও দাওয়াত পাবেন।

    অনুষ্ঠানে নির্বাচন ও বিএনপি প্রসঙ্গে কথা বলতে গিয়ে ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপি একটা বড় দল, তারা নির্বাচনে আসুক আমরা চাই। ক্ষমতার পরিবর্তন চাইলে নির্বাচনে অংশ নিতে হবে। এখন নির্বাচনে অংশ না নিয়ে যদি মনে করেন হত্যা সন্ত্রাসের পথে থাকবেন, যদি মনে করেন শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিয়ে ষড়যন্ত্রের চোরাগলি দিয়ে আপনারা ক্ষমতার মসনদে বসবেন, তাহলে এই রঙিন খোয়াব দুঃস্বপ্নে পরিণত হবে।

    বিএনপিকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, বিএনপি আন্দোলনের নামে রাস্তার ভাষায় কথা বলে। তারা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকি দিচ্ছে। তারা পঁচাত্তরের হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেকবার বলছে। ১৫ আগস্টের পুনরাবৃত্তি করবে , দেশে বিদেশে এই ধরনের বক্তব্য যে তারা দিচ্ছিল, আমি বলেছিলাম ফখরুল সাহেব আপনি দলের মহাসচিব। আপনার দলের এই তরুণ তুর্কিদের সামলান। এই ধরনের স্লোগান দিলে হত্যা ও রাজনীতির পরিণাম হবে ভয়াবহ। আমি ফখরুল সাহেবকে বলেছি এভাবে চলতে থাকলে পরিণতি কী হবে তা দেখতে পাবেন। পরিণতি কার খারাপ হবে সেটা বাস্তবেই দেখতে পাবেন।

    পদ্মা সেতু নির্মাণে দুর্নীতির অভিযোগ তুলে কানাডার একটি আদালতে মামলা হয়েছিল। কানাডার কোম্পানি এসএনসি- লাভালিনের কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির মাধ্যমে পদ্মা সেতু নির্মাণের কাজ পাওয়ার চেষ্টার অভিযোগ করা হয়েছিল। আর এই দুর্নীতির অভিযোগ তুলেই বিশ্বব্যাংক পদ্মা সেতু নির্মাণ প্রকল্পে তাদের ঋণ বন্ধ করে দেয়। পরে দুর্নীতির অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হলে বিশ্ব ব্যাংক আবার প্রকল্পে ফিরতে চায়। কিন্তু বাংলাদেশ তাতে রাজি হয়নি, নিজস্ব অর্থায়নে সেতু বাস্তবায়নের সিদ্ধান্ত নেয়।

    অনুষ্ঠানে জানানো হয়, নারী প্রশিক্ষণার্থীদের ৬ষ্ঠ ব্যাচে মোট ১০ জন নারী ও ১ জন তৃতীয় লিঙ্গেরসহ মোট ১১ জন প্রশিক্ষণার্থী ছিলেন। উত্তরা, আশকোনা ও নিকেতনে অবস্থিত ব্র্যাক ড্রাইভিং স্কুলে ৩ মাসের আবাসিক ও ৩ মাসের শিক্ষানবিশ প্রশিক্ষণ শেষে এবং পুলিশ ভেরিফিকেশন শেষে বিআরটিএ থেকে ড্রাইভিং লাইসেন্স পেয়েছেন তারা।

    অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ব্র্যাকের নির্বাহী পরিচালক আসিফ সালেহ। এছাড়া আরও উপস্থিত ছিলেন ব্র্যাকের প্রশাসন এবং সড়ক নিরাপত্তা কর্মসূচির পরিচালক আহমেদ নাজমুল হুসেইন, ব্র্যাক জেন্ডার কর্মসূচির পরিচালক নবনীতা চৌধুরী, বিশ্ব ব্যাংক ঢাকার কান্ট্রি ডাইরেক্টর মারসি মিয়াং টেমবন, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কে. এম আলী আজম, বিআরটিএ চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদ মজুমদার, বিআরটিসির চেয়ারম্যান মো. তাজুল ইসলাম, নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের চেয়ারম্যান ইলিয়াস কাঞ্চন প্রমুখ।


    লালসবুজের কণ্ঠ/এআর

    24Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর