নকল ও ভেজাল ঔষধ বন্ধে জিরো টলারেন্স- ডিজি - লালসবুজের কণ্ঠ
    শুক্রবার, ১২ অগাস্ট ২০২২, ০৯:৫৫ অপরাহ্ন

    নকল ও ভেজাল ঔষধ বন্ধে জিরো টলারেন্স— ডিজি

    • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ২৮ জুন, ২০১৯

    চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:
    ৯৮ ভাগ নিজেদের চাহিদা পূরণ করে বিশে^র ১৪৬ টি দেশে ঔষধ রফতানি করা হচ্ছে। আমাদের দেশের গুণগতমানসম্পন্ন ঔষধ উৎপাদন হয় কিন্তু দেশে ঔষধ বিপণন ব্যবস্থা মান সম্পন্ন নয়। দেশে ১ লক্ষ ৩০ হাজার ঔষধের দোকান মানসম্পন্ন যেন হয় সে লক্ষ্যে কাজ করা হচ্ছে। নকল ও ভেজাল ঔষধের ব্যাপারে আমাদের অবস্থান জিরো টলারেন্স। মহামান্য আদালতের নির্দেশনা রয়েছে ১ মাসের মধ্যে মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ উত্তোলন করে তা ধ্বংস করতে হবে জানান ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান।

    আজ শুক্রবার (২৮জুন) সকালে চাঁপাইনবাবগঞ্জের বড়ইন্দারা মোড়ে অবস্থিত মিঞা ফার্মেসী, ‘জাহান ফার্মেসি’‘তাজ ফার্মেসিকে’ এবং শিবগঞ্জের মের্সাস জামান ফার্মেসীকে মডেল ফার্মেসি হিসেবে উদ্বোধনের পর গণমাধ্যমকর্মীদের একথা বলেন।

    পরে, দুপুরে টাউনক্লাব মিলনায়তনে ঔষধ প্রশাসন অধিদফতর এবং বাংলাদেশ কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতি, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আয়োজনে নকল, ভেজাল ও মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ প্রতিরোধে জনসচেতনতা মূলক সভার আয়োজন করা হয়। বাংলাদেশ কেমিস্ট এন্ড ড্রাগিস্ট সমিতি রাজশাহী শাখার সভাপতি মো. জিয়াউল হকের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি’র বক্তব্য রাকেন, ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান।

    প্রধান অতিথির বক্তব্যে মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মো. মাহবুবুর রহমান বলেন, ২ জুলাইয়ের মধ্যে সব মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ একত্রে সংগ্রহ করে কোম্পানিগুলোকে বুঝিয়ে দিতে হবে। সেই কোম্পানিগুলো ক বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়ামানুযায়ী ধ্বংস করে প্রতিবেদন দাখিল করতে হবে। ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের পক্ষ থেকে ফার্মেসিগুলোকে পর্যবেক্ষণ করা হবে। এ ছাড়া ভেজাল ঔষধ যাতে বাজারে প্রবেশ করতে না পারে সেদিকে নজর রাখা হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ঢাকাসহ সারাদেশে এ কার্যক্রম চালু করা হয়েছে। এসব ফার্মেসি থেকে মানুষ সহজেই সকল প্রকার ঔষধ পাবে। তিনি আরও বলেন, মেয়াদোত্তীর্ণ ঔষধ ধ্বংসের জন্য ইতোমধ্যেই কাজ শুরু করেছে সংশ্লিষ্ট দফতর।

    অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, ঔষধ প্রশাসন অধিদফতরের পরিচালক (প্রশাসন) মো. রুহুল আমীন, বাংলাদেশ কেমিস্ট অ্যান্ড ড্রাগিস্ট সমিতি’র কেন্দ্রীয় পরিচালনা পরিষদের সহ-সভাপতি এইচ এম শাহাদাৎ হোসেন, চাঁপাইনবাবগঞ্জ’র ঔষধ তত্বাবধায়ক মো. আবদুল মালেক, স্থানীয় ঔষধ ব্যবসায়ী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. মশিউর রহমান প্রমুখ।
    বাংলাদেশ ফার্মেসি মডেল ইনিসিয়েটিভ এর পাইলট প্রকল্প’র আওতায় শহরের ১২টি ফার্মেসিকে ‘মডেল মেডিসিন শপ’ ও মডেল ফার্মেসী হিসেবে উদ্বোধন করেন ডিজি।

    429Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর