ধানের দাম বাড়ায় হাসি ফুটজে কৃষকের মুখে হাসি - লালসবুজের কণ্ঠ
    মঙ্গলবার, ০৫ জুলাই ২০২২, ০২:৩১ পূর্বাহ্ন

    ধানের দাম বাড়ায় হাসি ফুটজে কৃষকের মুখে হাসি

    • আপডেটের সময় : রবিবার, ১৬ জুন, ২০১৯
    lalsobujerkontho

    আসাদুজ্জামান মিঠু,বরেন্দ্র অঞ্চল:
    চলতি বোরো মৌসুমে ক্ষেত থেকে ঘরে তোলা পর্যন্ত ধান নিয়ে নানা নাজেহালে পড়তে হয়েছিল কৃষকদের। ঘরে ধান উঠলেও বাজারে দাম না পেয়ে ব্যাপক হারে লোকসানের মুখে পড়তে হয় দেশের কৃষকদের। এ নিয়ে সারা দেশে থেকে ধানের দাম বাড়ানোর জোরালো দাবি উঠে সব মহল থেকে। নড়েচড়ে বসে খাদ্য বিভাগ।

    অবশেষে কৃষকদের স্বার্থ রক্ষাতে নরে চড়ে বসে সরকার। ১১ জুন মঙ্গলবার আবারও নতুন করে ২৬ টাকা কেজি দরে দুই লাখ ৫০ হাজার টন বোরো ধান কেনার সিন্ধান্ত’র কথা জানানো হয় সরকারের পক্ষ হতে । সরকারের এমন ঘোষনার পরেই বরেন্দ্র অঞ্চলে ধানের বাজারে চিত্র পাল্টাটে শুরু করেছে। এক-দুই দিনের ব্যবধানে মণ প্রতি বেড়েছে ৭০-৮০ । সরকারে এমন সিন্ধান্তে খুশি বরেন্দ্র অঞ্চলের কৃষক।

    স্থানীয় ধান ব্যবসায়ীরা জানান,,বোরো ধান উঠার শুরু থেকে প্রতিমণ (৪০কেজি) ৬০০ থেকে ৬৫০ টাকার মধ্যে ঘুরপাক করছিল দাম। মঙ্গলবার নতুন করে আরও আড়াই লাখ টন ধান কৃষকের কাছে কেনার সিন্ধান্তর কথা জানান সরকার। সরকারে ঘোষনার পরে হঠাৎ’ করে বাজারে ৭০ থেকে ৮০ টাকা বেড়ে প্রতিমণ ধান বিক্রি হচ্ছে ৭৪০ থেকে ৭৬০ টাকা দরে। এক সপ্তহের মধ্যে আরও বাড়বে বলে আশা ব্যবসায়ীদের।

    আর কৃষকরা জানিয়েছেন,সরকারের ঘোষণার পরে প্রতিমণ ধানের দাম বাজারে ৭০ থেকে ৮০ টাকা বেড়ে বিক্রি হচ্ছে ৭৪০ থেকে ৭৬০ টাকা। দাম বাড়ায় খুশি কৃষকেরা। তবে কৃষকেরা সরাসরি ধান গুডাউনে না দিতে পারলেও বাজারে প্রতিমণ ৮৫০ থেকে ৯০০ টাকার মধ্যে থাকলে তবেই পুশিয়ে নিতে পারবেন বলে মনে করেন তারা। তাতে সরকারে নজর দারি থাকার কথা বলছেন কৃষকেরা।

    কৃষি বিভাগের তথ্য মতে, চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে ২৬ টাকা কেজি দরে এক লাখ ৫০ হাজার টন সরকারী ভাবে কৃষকদের কাছে ধান কেনার সিন্ধান্ত হয়েছিল। যা প্রতিমণ (৪০) কেজির দাম পড়ছিল ১০৪০ টাকা। কিন্ত সরকারে বেধে দেয়া দরে বাজারে প্রভাব না পড়াই কৃষকেরা লোকসান করে ৬০০ টাকা ধান বিক্রি করতে বাধ্য হয়। কৃষকদের লোকসানের কথা চিন্তা করে সরকার ১১ জুন মঙ্গলবার আবারও নতুন করে ২৬ টাকা কেজি দরে আরও দুই লাখ ৫০ হাজার টন ধান কেনার ঘোষনা দেন। এতে মোট চার লাখ টন এবার ইরি-বোরো ধান ক্রয় করা হবে। এতে কৃষকেরা ধানের ন্যায মুল্য পাবে বলে আশা প্রকাশ করে তারা।

    রাজশাহীরা তানোর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম জানান,দেশের কৃষকদের কথা চিন্তা করে প্রধানমন্ত্রী নিদের্শে আরও অতিরিক্ত আড়াই লাখ টন ধান ক্রয় করার সিন্ধান্ত নেন খাদ্য বিভাগ। সঙ্গে দেশের চাল বিদেশে রফতানি করারও সিন্ধান্ত প্রায় চুড়ান্ত। এতে দেশের বাজারে ধানের দাম বাড়ানো নিয়ে কৃষকদের আর কোন চিন্তার কারণ নাই।
    ঘোষনার পড়েই বাজারে ধানের দাম বাড়তে শুরু করেছে। আশা করি এক সপ্তহের মধ্যে আরো বেশি ধানের বাড়বে।

    1Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর