দেশে অরাজকতা করলে গণধোলাই : মেয়র লিটন - লালসবুজের কণ্ঠ
    শনিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৩৫ অপরাহ্ন

    দেশে অরাজকতা করলে গণধোলাই : মেয়র লিটন

    • আপডেটের সময় : রবিবার, ২৮ আগস্ট, ২০২২

    রাজশাহী প্রতিবেদক;


    নির্বাচনে না এসে অরাজকতা করলে গণধোলাই দেওয়া হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও রাজশাহী সিটি করপোরেশনের মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন।

    রোববার (২৮ আগস্ট) রাজশাহী মেডিকেল কলেজের ডা. কায়ছার রহমান চৌধুরী মিলনায়নে আয়োজিত শোক সভায় বিএনপিকে উদ্দেশ তিনি এ ঘোষণা দেন লিটন। মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত ওই সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন মেয়র লিটন।

    এই সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়ালি যুক্ত ছিলেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী কামালের সভাপতিত্বে এতে প্রধান বক্তা ছিলেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক এসএম কামাল হোসেন।

    সভায় মেয়র লিটন বলেন, বিএনপি ও তাদের সহযোগীরা বলছে, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া নির্বাচন হতে দেওয়া হবে না। এই প্রসঙ্গে আমাদের দল পরিষ্কারভাবে বলে দিয়েছে, নিরপেক্ষ নির্দলীয় সরকারের আর কোনো সুযোগ নেই। বর্তমান ক্ষমতাসীন দল ক্ষমতায় থেকে, শেখ হাসিনাকে প্রধানমন্ত্রী রেখেই নির্বাচন কমিশনের মাধমে নির্বাচন হবে।

    তাতে বিএনপি নির্বাচনে আসুক আর না আসুক। যদি বিএনপি নির্বাচনে না এসে নির্বাচনের পর আগুন সন্ত্রাস বা অরাজক পরিবেশ তৈরি করতে চায়, তাহলে আওয়ামী লীগ ও সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মীরা তাদেরকে গণধোলাই দিয়ে এদেশ থেকে বের করে দেওয়ার ব্যবস্থা করবে।

    তিনি আরও বলেন, দেশ স্বাধীনের পর জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যখন দেশ গড়তে লাগলেন, আমরা তাকে সময় দিলাম না। বঙ্গবন্ধু যে জিয়াউর রহমানকে চারটি প্রমোশন দিয়ে মেজর থেকে মেজর জেনারেল করেছিলেন, সেই জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুকে হত্যার নেপথ্যের কাজটি সুচারুরূপে করতে লাগলেন।

    এই পটভূমি তৈরি করার জন্যে বিভিন্নভাবে একাত্তরের পরাজিত শক্তিদের অস্ত্র দিয়ে, অর্থ দিয়ে, বৈদেশিক সমর্থন দিয়ে চক্রান্তকারীরা প্রস্তুতি গ্রহণ করে। বঙ্গবন্ধু হত্যার প্রেক্ষাপট তৈরি করার ক্ষেত্রে আরও একটি দল ভূমিকা রেখেছে, সেটি হচ্ছে তৎকালীন জাসদ।

    সভায় প্রধান বক্তা এস এম কামাল বলেন, বিএনপি হলো একটি ভুঁইফোড় সংগঠন। বিএনপির যাত্রা শুরু হয়েছে মিথ্যাচারের রাজনীতি দিয়ে। তারা অপপ্রচারের রাজনীতিতে মগ্ন। জনগণের ভালোমন্দতে তাদের কোনো যায় আসে না। এমনিভাবে তারা রাজনৈতিক ফায়দা লুটতে চায়।

    তিনি আরও বলেন, রাষ্ট্র ও জনগণের সেবায় বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ কখনো পিছু হটবে না। বাংলাদেশ ও বাঙালির স্বাধিকার আন্দোলন থেকে শুরু করে সকল অর্জন এই সংগঠনের হাত ধরেই হয়েছে। বর্তমানের বাংলাদেশ বিশ্ব মানচিত্রে উন্নয়নের রোল মডেল।

    সভায় আরও বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত নারী আসনের সংসদ সদস্য বেগম আখতার জাহান, মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার, যুগ্ম সম্পাদক আহ্সানুল হক পিন্টু, সাংগঠনিক সম্পাদক মীর ইসতিয়াক আহমেদ লিমন প্রমুখ।


    টি,আর/তন্বী

    12Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর