থমকে গেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম রফতানি প্রক্রিয়া - লালসবুজের কণ্ঠ
    সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৮:০৯ পূর্বাহ্ন

    থমকে গেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম রফতানি প্রক্রিয়া

    • আপডেটের সময় : শনিবার, ২২ জুন, ২০১৯

    নিজস্ব প্রতিবেদক
    পৃষ্ঠপোষকতার অভাবে প্রায় শূন্যের কোঠায় নেমে এসেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জের আম রপ্তানি। চাষিদের অভিযাগ, ত্রুটিপূর্ণ রপ্তানি প্রক্রিয়া আর কন্ট্রাক্ট ফার্মিংয়ে আম উৎপাদনে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছেন তারা। কৃষি বিভাগ বলছে, রপ্তানিকারক ও উৎপাদনকারীর মধ্যে বোঝাপড়া না হওয়ায় ব্যাহত হচ্ছে রপ্তানি প্রক্রিয়া।

    চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার আম চাষী শহীদুল ইসলাম। গুড এগ্রিকালচার প্রাকটিসের ২৬ টি নিয়ম-নীতি মেনে উৎপাদন করেন রপ্তানিযোগ্য আম।

    ২০১৬ সালে ৫ মেট্রিকটন আম রপ্তানি করেছিলেন তিনি। তবে পরের বছর থেকে তা আর হয়নি। উল্টো বাদ পড়েছেন কন্ট্রাক্ট ফার্মিং থেকে। এজন্য কৃষি বিভাগের অনিয়ম আর স্বেচ্ছাচারিতাকে দুষছেন তিনি। কন্ট্রাক্ট ফার্মিং-এর আওতায় আম উৎপাদন করেছেন আরো ৫০ জন চাষী। একই ধরনের অভিযোগ তাদেরও।

    ২০১৫ সালে চাঁপাইনবাবগঞ্জ থেকে পরীক্ষামূলক দুই মেট্রিক টন আম দিয়ে শুরু হয় রপ্তানি প্রক্রিয়া। পরের বছর যা দাড়ায় ১০৪ মেট্রিকটনে। আর ২০১৭ সালে তা কমে দাড়ায় মাত্র ৩ মেট্রিকটনে। আর গত বছর রপ্তানি হয় ৩৩ মেট্রিক টন।

    আম রপ্তানির ক্ষেত্রে টেকসই কন্ট্রাক্ট ফার্মিং নীতিমালা তৈরি কোরে কর্মপরিকল্পনা নেয়ার দাবি চাষী ও ব্যবসায়ী নেতাদের। কৃষি বিভাগ বলছে, রপ্তানিকারক ও উৎপাদনকারীর মধ্যে বোঝাপড়া না হওয়ায় ব্যাহত হচ্ছে রপ্তানি প্রক্রিয়া।

    চলতি বছর কন্ট্রাক্ট ফার্মিং-এর আওতায় ৫শ মেট্রিকটন রপ্তানিযোগ্য আম উৎপাদন করেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জের চাষীরা।

    74Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর