টি-টুয়েন্টির ক্ষত ভুলে দুপুরে ওয়ানডেতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ - লালসবুজের কণ্ঠ
    মঙ্গলবার, ০৯ অগাস্ট ২০২২, ০৪:১৮ পূর্বাহ্ন
    শিরোনাম

    টি-টুয়েন্টির ক্ষত ভুলে দুপুরে ওয়ানডেতে মাঠে নামছে বাংলাদেশ

    • আপডেটের সময় : শুক্রবার, ৫ আগস্ট, ২০২২

    লালসবুজের কণ্ঠ, স্পোর্টস ডেস্ক:


    ওয়ানডেতে বাংলাদেশ সবচেয়ে বেশি
    ৭৮ টি ম্যাচ খেলেছে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে।
    ২০১৩ সালের পর বাংলাদেশ জিম্বাবুয়েকে
    টানা ১৯টি ওয়ানডেতে হারিয়েছে।


    হারারে স্পোর্টস ক্লাবে আজ থেকে শুরু হতে যাওয়া জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে মাঠে নামছে বাংলাদেশ। এই সফরে সদ্যই জিম্বাবুয়ের কাছে প্রথমবারের মত টি-টোয়েন্টি সিরিজ হারের লজ্জা পায় বাংলাদেশ।

    শুক্রবার (৫ আগস্ট) বাংলাদেশ সময় দুপুর ১টা ১৫ মিনিটে শুরু হওয়া ম্যাচটি টি-স্পোর্টস চ্যানেলে সরাসরি সম্প্রচার করা হবে।

    টি-টোয়েন্টি ফেভারিট ফরম্যাট নয় বাংলাদেশের। তারপরও আশা করা হয়েছিলো টি-টোয়েন্টি সিরিজে জিতবে টাইগাররা। কিন্তু বাংলাদেশের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টিতে ২-১ ব্যবধানে প্রথম সিরিজ জয়ের স্বাদ নেয় জিম্বাবুয়ে। সেই সঙ্গে এই ফরম্যাটে কোনো টেস্ট খেলুড়ে দেশের বিপক্ষে প্রথম সিরিজ জয়ের স্বাদ পায় জিম্বাবুয়ে।

    এই মুহূর্তে ওয়ানডেতে বিশ্বের সেরা দল বাংলাদেশ। ২০১৯ সালের ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর নয়টি দ্বিপাক্ষীক সিরিজ খেলেছে বাংলাদেশ। এরমধ্যে সাতটিতেই জিতেছে তারা। ২০১৯ সালে শ্রীলঙ্কার ও ২০২১ সালে নিউজিল্যান্ডের কাছে দু’টি সিরিজ হারে তারা। নিউজিল্যান্ডের কাছে হারের পর টানা পাঁচটি সিরিজ জিতে বাংলাদেশ। শ্রীলংকা-জিম্বাবুয়ে-আফগানিস্তান-দক্ষিণ আফ্রিকা ও ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে জিতে টাইগাররা।

    তাই ওয়ানডেতে বাংলাদেশের শক্তি স্পষ্ট। জিম্বাবুয়ের কাছে বাংলাদেশ সিরিজ হারলে সেটি হবে বড় ধরনের অঘটন। ২০১৩ সালের পর থেকে জিম্বাবুয়ের কাছে কোনো সিরিজ হারেনি টাইগাররা। ওই বছর ঘরের মাঠে বাংলাদেশকে ২-১ ব্যবধানে হারিয়েছিলো জিম্বাবুয়ে।

    ওই সময় থেকে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে পাঁচটি সিরিজ ও ত্রিদেশীয় সিরিজে দুটি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। সব ম্যাচে জিতে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টানা ১৯ ম্যাচ জয়ের রেকর্ড গড়েছে টাইগাররা। আজ বাংলাদেশ যখন তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথমটি খেলতে নামবে তখন তাদের নজর থাকবে জয়ের সংখ্যাটা ২০’এ নেয়া। সব মিলিয়ে জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে ৭৮টি ম্যাচ খেলেছে বাংলাদেশ। এর মধ্যে ৫০টিতে জিতেছে টাইগাররা। হেরেছে ২৮টিতে।

    বাংলাদেশ স্কোয়াড
    তামিম ইকবাল (অধিনায়ক), লিটন দাস, এনামুল হক বিজয়, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, আফিফ হোসেন ধ্রুব, নুরুল হাসান সোহান, মেহেদী হাসান মিরাজ, নাসুম আহমেদ, তাসকিন আহমেদ, শরিফুল ইসলাম, মোস্তাফিজুর রহমান, হাসান মাহমুদ, নাজমুল হোসেন শান্ত, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত, তাইজুল ইসলাম।

    জিম্বাবুয়ে স্কোয়াড
    রায়ান বার্ল, রেগিস চাকাভা (অধিনায়ক), ব্র্যাডলি ইভান্স, লুক জংওয়ে, ইনোসেন্ট কাইয়া, তাকুদজওয়ানাশে কাইতানো, ওয়েসলে মাধেভেরে, তাদিওয়ানাশে মারুমানি, ওয়েলিংটন মাসাকাদজা, টনি মুনিয়ঙ্গা, তারিসান মুসাকান্দা, রিচার্ড এনগারাভা, ভিক্টর নিয়াউচি, সিকান্দার রাজা ও মিল্টন শুম্বা।


    লালসবুজের কণ্ঠ/এআর

     

    18Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর