চাঁপাইনবাবগঞ্জে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালিত - লালসবুজের কণ্ঠ
    শনিবার, ০৮ অক্টোবর ২০২২, ১২:১১ পূর্বাহ্ন

    চাঁপাইনবাবগঞ্জে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের জন্মবার্ষিকী পালিত

    • আপডেটের সময় : সোমবার, ৮ আগস্ট, ২০২২

    চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি:


    চাঁপাইনবাবগঞ্জে নানান কর্মসূচির মধ্যদিয়ে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সহধর্মিণী বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবের ৯২তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে।

    সোমবার সকাল সোয়া ১০টায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গণভবন থেকে ভার্চুয়ালির মাধ্যমে বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিব’র ৯২তম জন্মবার্ষিকী এবং বঙ্গমাতা বেগম মুজিব পদক-২০২২ প্রদান অনুষ্ঠানের সরাসরি সম্প্রচারের ব্যবস্থা করা হয়।

    পরে দুপুর সোয়া ১২টায় জেলা প্রশাসন ও মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আলোচনা সভা ও সেলাই মেশিন বিতরণ অনুষ্ঠিত হয়।

    জেলা প্রশাসক এ কে এম গালিভ খাঁনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় বক্তব্য রাখেন, নবাবগঞ্জ সরকারি কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর ড. শংকর কুমার কুন্ডু, সরকারি মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর মনোয়ারা বেগম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার এস এ এম ফজল-ই খুদা, বীর মুক্তিযোদ্ধা অ্যাডভোকেট আব্দুস সামাদ প্রমুখ।

    বক্তারা বলেন, বাংলাদেশের স্বাধীনতা অর্জনের লক্ষ্যে প্রতিটি পদক্ষেপ ও কার্যক্রম বাস্তবায়নে জাতির পিতার নেপথ্য শক্তি, সাহস ও বিচক্ষণ পরামর্শক ছিলেন বঙ্গমাতা। তিনি রাজনীতির সাথে জড়িত না থেকেও বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক সাফল্যে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেন।

    তিনি ছিলেন দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ, রাজনীতি সচেতন এক মহীয়সী নারী এবং বঙ্গবন্ধুর বন্ধু, দার্শনিক ও পথ প্রদর্শক। বক্তারা আরো বলেন, বঙ্গমাতা কারাগারে বঙ্গবন্ধুর জন্য খাবার নিয়ে যেতেন, আর নেতা-কর্মী ও দলের জন্য নির্দেশনা নিয়ে এসে তাদের কাছে পৌঁছে দিতেন। কর্মী ও কারাবন্দি নেতাদের পরিবারের আর্থিক সহায়তা করতেন। বঙ্গবন্ধুর বিরুদ্ধে সকল মামলা নিজেই পরিচালনা করতেন। কঠিন সময়ে সংসার পরিচালনা, সন্তানদের লেখাপড়া ও সকল দায়িত্ব পালন করেছেন ধৈর্য এবং সাহসের সাথে।

    আরো বলেন, তিনি ছিলেন দলের নেতাকর্মীদের পরম নির্ভরতা ও আস্থার শেষ আশ্রয়স্থল। বঙ্গমাতার জীবন-আদর্শ চর্চার মাধ্যমে নতুন প্রজন্ম আরো বেশি দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হবে।

    স্বাগত বক্তব্য রাখেন সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইফফাত জাহান। এ অনুষ্ঠানে বঙ্গমাতার জীবনের ওপর একটি আলোকচিত্র প্রদর্শন করা হয়। পরে জেলা মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উদ্যোগে কর্মক্ষম, অসহায় ও অস্বচ্ছল নারীদের কর্মসংস্থান সৃষ্টির লক্ষ্যে ১২ জনকে সেলাই মেশিন ও ৭ জনকে মোবাইল ব্যাংকিং এর মাধ্যমে অর্থ সহায়তা প্রদান করা হয়।

    অপরদিকে, জেলা স্বেচ্ছাসেবকলীগের উদ্যোগে সকাল সাড়ে ১০টায় জেলা শহরের পাঠানপাড়াস্থ শহিদ মনিমুল হক সড়কের আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনটির সভাপতি মোহাঃ আব্দুল আওয়াল গনি জোহার সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক এইচ এম ফায়জার রহমান কনকের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক মোঃ শরিফুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক আরিফুর রেজা ইমন, সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মোঃ তোসিকুল আলম বাবুল, আ’লীগ নেতা জুবায়ের প্রমূখ।

    শেষে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বেগম ফজিলাতুন নেছা মুজিবসহ সকল শহিদের আত্মার মাগফিরাত কামনায় দোয়া অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে সকালে কোরআনখানি অনুষ্ঠিত হয়।


    কামাল/এআর

    0Shares

    এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

    Leave a Reply

    Your email address will not be published.

    এই বিভাগের আরও খবর