1. [email protected] : News room :
গাইবান্ধায় দিনেরাতে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ - লালসবুজের কণ্ঠ
শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:১১ পূর্বাহ্ন

গাইবান্ধায় দিনেরাতে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ

  • আপডেটের সময় : শনিবার, ২৮ সেপ্টেম্বর, ২০১৯

গাইবান্ধা সংবাদদাতা: সনাতন ধর্মের আনন্দ উৎসবের বার্তা নিয়ে শুভ্র সমুজ্জল শরৎ এসেছে তাদের মাঝে। নীল আকাশে ভেসে বেড়ানো সাদা মেঘের ভেলা, নদীর তীরে ও মাঠে ঘাটে ফুটেছে কমল কাশফুল।

শরৎতের হাওয়ার দুলছে অবিরাম কাশফুল। ফুটেছে বিলে থোকায় থোকায় কমলী ও শাপলা। এমন মুগ্ধ পরিবেশে আগামী ৫ অক্টোবর থেকে শুরু হতে যাচ্ছে হিন্দু ধর্মালম্বীদের অন্যতম প্রধান ধর্মীয় উৎসব শারদীয় দূর্গাপূজা। এবার পুঞ্জিকা পুথি অনুযায়ি দেবী দূর্গা ঘোড়ায় চরে আসবেন এবং ঘোড়ায় চড়েই গমন করবেন।

এবার দেবীর কাছে তার ভক্তদের চাওয়া মানুষে মানুষে যে বিভক্তি তা থেকে পরিত্রান পাওয়া। এমনটাই আশা তাদের। জেলা পূজা উদযাপন কমিটির তথ্য মতে, গাইবান্ধায় জেলায় এবার ৬০৮ টি মন্ডপে দুর্গা পূজা অনুষ্ঠিত হবে। তার মধ্যে গাইবান্ধা সদর উপজেলায় মোট ১০১ টি র্দুগা পুজা অনুষ্ঠিত হবে।

গাইবান্ধা শ্রী শ্রী কেন্দ্রীয় কালিবাড়ি মন্দিরের সহকারি পুরোহিত শ্রী দীপ মুন্সী বলেন, শারদীয় দূর্গাপূজা উপলক্ষে মন্ডপে মন্ডপে চলছে প্রতিমা তৈরি কারিগরদের ব্যস্ততা। দিন রাত বিশ্রামহীন ভাবে চলছে প্রতিমা তৈরির কাজ। নরম হাতের ছোঁয়ায় ফুঁটিয়ে তোলা হচ্ছে দেবি দূর্গা, স্বরস্বতি, লক্ষী, গণেশ, কার্তিকসহ বিভিন্ন দেব-দেবতার মুর্তি। কোথায় চলছে নতুন প্রতিমা তৈরি আবার কিছু কিছু প্রতিমায় রং তুলি আঁচর দিতে শুরু করেছে শিল্পীরা।

এর পর মূর্তিগুলোকে বিভিন্ন অলংকার দিয়ে সাজিয়ে প্রতিমার রুপে উপযোগী করা হবে। পুজাকে সামনে রেখে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে চলছে উৎসবের আমেজ। দেবির আগমনকে ঘিড়ে হিন্দু পাড়ায় পাড়ায় বাড়িতে বাড়িতে চলছে পুজার প্রস্তুতি।

জেলা পুজা উদযাপন কমিটি সাধারণ সম্পাদক দীপক কুমার পাল জানান, গাইবান্ধা জেলায় এবার ৬০৮ টি বন্যার কারনে গত বছরের তুলনায় এবার জেলায় পূজা কম। বিশেষ করে বন্যা কবলিত ফুলছড়ি ও সুন্দরগঞ্জ উপজেলায় এবার শারদীয় দূর্গাপূজা কম। অতিতের বিভিন্ন অনাকাঙ্খিত অপ্রতিকর ঘটনা এড়াতে কমিটি গঠন করা হয়ে। প্রতিটি মন্ডপে ভলানটিয়ার হিসাবে ১০ থেকে ১২ জন লোক রাখা হবে। তবে এর পাশাপাশি পুলিশী নজরদারি বাড়ানো দনকার।

গাইবান্ধা সদর উপজেলা পূজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি সুজন প্রসাদ বলেন,এবারে র্দূগা পূজা সুষ্ঠ ও সুন্দর ভাবে পালিত হবে। এটা সনাতন মানুষের জন্য রড় পূজা। এটা শুধু আমাদের আনন্দ না এটা সবার আনন্দ।

জেলা পুলিশ সুপার মুহাম্মদ তৌহিদুল ইসলাম জানান, আসন্ন হিন্দু ধমের্র প্রধান উৎসব দূর্গাপুজা। পুজা র্নিবিঘ্নে উদযাপন ও যে কোন ধরনের অপ্রতিকর পরিস্থিতি এড়াতে জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

21Shares

এই পোস্টটি আপনার সামাজিক মিডিয়াতে শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই বিভাগের আরও খবর